Image
3 months ago 0 comments

মেগা সিটি হচ্ছে রাজশাহী

বাস্তবায়নের পথে ৪০ প্রকল্প

মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করে রাজশাহীর বিভিন্ন খাতে ব্যাপক উন্নয়নের লক্ষ্যে রাজশাহী সিটি করপোরেশন ও চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান পাওয়ার চায়নার মধ্যে সমঝোতা স্মারক চুক্তি (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী আগামী তিন বছর আটটি খাত সামনে রেখে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করবে পাওয়ার চায়না। খাতগুলোর মধ্যে পদ্মা নদীর ধারে শহর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ করে সেখানে গড়ে তোলা হবে স্যাটেলাইট টাউন, বিনোদন কেন্দ্রসহ বিভিন্ন স্থাপনা। স্থাপন করা হবে বিশ^মানের বিশেষায়িত হাসপাতাল। নির্মাণ করা হবে ইকোপার্ক ও সায়েন্স সিটি। হজরত শাহ মখদুম বিমানবন্দর সম্প্রসারণ এবং অবকাঠামো উন্নয়ন ও টেকনিক্যাল সুবিধা বাড়ানো হবে। এ ছাড়া সুয়ারেজ ড্রেনেজ ব্যবস্থা এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, নগর পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হবে। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য নগর ভবন সভাকক্ষে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের পক্ষে মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন ও পাওয়ার চায়নার  পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার হান কুনের মধ্যে সম্প্রতি চুক্তিও স্বাক্ষরিত হয়েছে। ফলে উন্মোচিত হয়েছে মাস্টারপ্ল্যানে রাজশাহীর উন্নয়নের ব্যাপক সম্ভাবনার দ্বার। ৫০ বছর দীর্ঘমেয়াদি মাস্টারপ্ল্যানটি বাস্তবায়ন হতে শুরু করলে পাল্টে যাবে পুরো রাজশাহীর চিত্র।

মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বতর্মানে সিটি করপোরেশনের আয়তন ছোট। সিটি করপোরেশনের আয়তন প্রায় ৪১০ বর্গকিলোমিটারে সম্প্রসারণ করা হবে। এই বৃহৎ এলাকার মানুষকে নগরের সুযোগ-সুবিধা প্রদানে চিহ্নিত করা আটটি খাত সামনে রেখে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করে দেবে পাওয়ার চায়না। চুক্তি আওতায় আগামী তিন বছরের মধ্যে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করা হবে। পরবর্তী সময়ে অগ্রাধিকারভিত্তিক একটার পর একটা প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। আগামী ৫০ বছরের জন্য এই পরিকল্পনা।

এদিকে রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলায় ১ লাখ ২৫ হাজার ২৫০ কোটিরও বেশি টাকা ব্যয়ে ৪০টি মেগা প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। এর মধ্যে পাবনার ঈশ্বরদীতে ৯৯০ একর জমির ওপর ১ লাখ ১৩ হাজার ৯২ কোটিরও বেশি টাকায় নির্মিত হচ্ছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র।


রাজশাহী মহানগরীতে ৩১.৬৩ একর জমিতে ২৮১.৯১ কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশ সিলিকন সিটির (হাইটেক পার্ক) নির্মাণকাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। চলতি বছর জুনের মধ্যে এর নির্মাণকাজ সম্পন্ন হলে এ পার্কে ১৪ হাজারের বেশি লোকের কর্মসংস্থান হবে।

রাজশাহী মহানগরীতে ২২২ কোটি টাকায় ২.৩০ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটার। ২০২০ সালের জুনে এর নির্মাণকাজ সম্পন্ন হবে। রাজশাহী মহানগরীতে ২.৪৪ একর জমিতে ৩২ কোটি টাকায় নির্মিত হচ্ছে ২০০ শয্যার রাজশাহী শিশু হাসপাতাল।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ প্রায় ২১৩৬.৩৭ কোটি টাকায় সাতটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এসব প্রকল্পের ১৬ শতাংশ কাজ ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে ২২৬০.১৪ কোটি টাকায় আটটি মেগা প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। বাংলাদেশ কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ ২৯৪৬.৬২ কোটি টাকায় আটটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর ৩৫.৯৬ কোটি টাকায় বাস্তবায়ন করছে ছয়টি প্রকল্প। বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চল ১৮২৯.৭৬ কোটি টাকায় চারটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।


সূত্রঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন

Post

শহীদ স্মরণে লুব্ধক

6 months ago

সময়ঃ বিকাল ৫:০০ টা

তারিখঃ ২৫-০২-২০১৯ (সোমবার) 

স্থানঃ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা হাইওয়ে, মতিহার, রাজশাহী-৬২০৫

যাঁরা যে কোনো মূল্যে অধিকার আদায় [...]

Post

রাজশাহীতে ইমিগ্রেশন সেমিনার

7 months ago

৯ ফেব্রূয়ারি, শনিবার রাজশাহীতে ইমিগ্রেশন সেমিনারে জয়েন করার জন্যে এখনই রেজিস্টার করুন। এটি একটি ফ্রি সেমিনার এবং আপনারা যারা দেশের বাইরে যুক্তরাষ্ট [...]

মন্তব্য করুন